পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

v প্রথমতঃ  মাঠ পর্যায়ে সরদার আমিনদের মাধ্যমে ভূমি জরিপ করে স্ব স্ব মালিকের নামে খতিয়ান খোলা হয়।

v দ্বিতীয়তঃ আমিনদের তৈরী করা খতিয়ান সঠিক দলিল পত্র দেখে তসদিক করা হয়। পরবর্তীতে যদি কোন ভুল হয়ে থাকে তাহলে ভূমির মালিকদ্বয়ের জন্য আপত্তি দাখিলের সুযোগ রয়েছে। আপত্তি দাখিল হলে উভয় পক্ষের কাগজপত্র দেখে আপত্তি অফিসার, আপত্তি নিস্পত্তি করেন।

      v   তৃতীয়তঃ আপত্তি রায়ের পরে যদি কোন ভূমি মালিকগণের মনপুত না হয় তাহলে পরবর্তীতে আপীল দায়ের সুযোগ পাচ্ছেন। আপীল দায়ের হলে উভয় পক্ষের 

       কাগজ পত্র দেখে এবং স্ব স্ব মালিকের ভূমি দখল আছে কিনা তাহা সার্ভেয়ার এর মাধ্যমে দখল তদন্ত করে সঠিক রেকর্ড প্রস্ত্তত করা হয়। সঠিক প্রস্ত্ততকৃত রেকর্ড

        ছাপানো হলে সরকারি নির্ধারিত ফি জমা নিয়ে স্ব স্ব ভূমির মালিকগণকে দেয়া হয়।

  • নামজারী ও জমাভাগ মোকদ্দমার মাধ্যমে রেকর্ড হালকরণ।
  • রেকর্ড সংশোধন।
  • খাস জমি ব্যবস্থাপনা।
  • খাস জমি ব্যবস্থাপনা।
  • অর্পিত সম্পত্তি ব্যবস্থাপনা।
  • সায়রাত মহালের তথ্যাদি সংরক্ষণও ব্যবস্থাপনা।
  • দেওয়ানী মোকদ্দামা তথ্য বিবরণী প্রস্তুত ও প্রেরণ।
  • ভূমি উন্নয়ন কর আদায়।
  • রেন্ট সাটিফিকেট মোকদ্দমা পরিচালনা করা।
  • গুচ্ছগ্রাম ও আদর্শ গ্রাম প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যক্রম।
  • আবাসন ও আশ্রয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন।
  • মিস মোকদ্দমা পরিচালনা করা।
  • ভূমিহীনদের মাঝে কৃষি খাস জমি বন্দোবস্ত প্রদান।
  • অকৃষি খাস জমি বন্দোবস্ত প্রদান।
  • জরিপ কাজের তদারকি ও পরিচালনা করা।
  • দাবিদারহীন (লা-ওয়ারীশ) সম্পত্তির ব্যবস্থাপনা
  • সিকস্তি-পয়স্তি জমি ব্যবস্থাপনা
  • এল এ কেস নিস্পত্তি করণে সহায়তা করা।
  • জমির শ্রেণী পরীবর্তন করা।
  • হাট-বাজার ব্যবস্থাপনা।
  • আদালতের আদেশ মোতাবেক রেকর্ড সংশোধন।
  • PO-96, 98,95
  • পরিত্যক্ত ভূ-সম্পত্তি জবর দখল/ উচ্ছেদ
  • সরকারি গাছ-গাছালি সংরক্ষণ / পুরাতন মালামাল সংরক্ষণ

 

 

 

উপরোক্ত কার্যক্রমগুলি সঠিকভাবে পরিচালনা ও বাস্তবায়নের জন্য সহকারী কমিশনার ভূমি এর অধীনে কানুনগো, সার্ভেয়ার, অফিস সহকারী, সমন জারীকারক, চেইনম্যান ও এমএলএসএসগণ দায়িত্ব পালন করেন ও সার্বিকভাবে তাঁকে সহযোগিতা করেন।


Share with :

Facebook Twitter